বাল্যবিয়ের আয়োজন করায় বর ও কনের বাবার জরিমানা

প্রকাশিত: ৮:০৬ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ১৭, ২০২১

বাল্যবিয়ের আয়োজন করায় বর ও কনের বাবার জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক : টাঙ্গাইলে ১৩ বছর বয়সী ৮ম শ্রেণীর ছাত্রীর নুরমিন আক্তারের বাল্য বিয়ে বন্ধ করে দিয়েছে ভ্রামমাণ আদালত। এসময় বাল্যবিয়ের আয়োজন করায় বরের বাবাকে ৪০ হাজার ও কনের বাবাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

শনিবার (১৬ জানুয়ারী) সকালে টাঙ্গাইল পৌরসভার ১৫ নং ওয়ার্ড আশেকপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ভ্রামমাণ আদালত পরিচালনা করেন টাঙ্গাইল সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো.খায়রুল ইসলাম।

জানা যায় কনে নুরমিন পৌর এলাকার জোবায়দা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণীর ছাত্রীর। বর শাহ্ আলম একই বিদ্যালয়ের খন্ড কালিন শিক্ষকতা করতেন। তাদের উভয় এর বাড়ি টাঙ্গাইল পৌরসভার আশেকপুর গ্রামে।

এ প্রসঙ্গে সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো.খায়রুল ইসলাম বলেন, সকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারি ১৩ বছর বয়সী ৮ম শ্রেণীর ছাত্রীর নুরমিন আক্তারের বাল্য বিয়ের আয়োজন চলছিল। সেখানে গিয়ে বাল্যবিবাহের আয়োজন বন্ধ করে দেই। এ অভিযোগে ২০১৭ সালের বাল্যবিবাহ নিরোধ আইনের ৮ ধারা অনুযায়ী কনের বাবা মো. নুরে আলমকে ১০ হাজার এবং বরের বাবা আব্দুর আজিজকে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। একই সাথে মেয়ের বয়স ১৮ না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দেবেন না মর্মে মুচলেকা নেওয়া হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা তথ্য সেবা কর্মকতা শামীমা আক্তার শাম্মী, ১৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল্লাহেল ওয়ারেছ হুমায়ুন, জোবায়দা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম।